ফেইসবুকে জনপ্রিয় হতে চান?

ফেইসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায়!

ফেইসবুকে জনপ্রিয় হতে চান, ফেইসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায়!, want to be famous in fb, how to famous in facebook

ফেইসবুকে প্রোফাইল নেই! তাও এই যুগে! এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন। ফেইসবুকের দুনিয়ায় সারা বিশ্বের অনেক মানুষ রয়েছে, কিন্তু এত বড় একটা ফেইসবুকের দুনিয়ায় নিজেকে কী করে জনপ্রিয় করে তুলবেন?

তাহলে জেনে নিন, ফেইসবুকে ফেমাস হতে হলে কি কি করতে হবে?
আগ বাড়িয়ে বন্ধুত্বের হাত বাড়াবেন নাঃ

অনেকেই আছে যারা শুধু আকর্ষণীয় প্রোফাইল পিকচার বা সুন্দর মুখ দেখে ‘ফ্রেন্ড রিক্যুয়েস্ট’ পাঠায়। এই কাজটি আপনি মোটেও করবেন না। নিজেকে এমন ভাবে তৈরী করুন, যাতে অন্যরা আপনাকে Request পাঠায়।

‘লাইক’ কথাটার গুরত্ব বুঝে লাইক দিনঃ

এমনিতে ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার খুব সাধারণ একটা উপায় হল বিভিন্ন পোস্টে লাইক দিয়ে যাওয়া। লাইক এর চেয়ে কমেন্ট অনেকক্ষেত্রেই বেশি কার্যকরী হয়। ধরুন আপনার বন্ধু একটা ছবি পোস্ট করল। আপনি সেখানে শুধু লাইক দিলেন। বন্ধু খুশি হল ঠিকই, কিন্তু যদি সেখানে কমেন্ট করে মজার কিছু বললেন। দেখবেন সেটা আরও কাজে দেবে। সব পোস্টে লাইক দেওয়ার অভ্যাসটাও ছাড়ুন। নিজে কিছু লিখতে পারেন না? কোন সমস্যা নেই। বিভিন্ন ওয়েবসাইটের ভালো ভালো কন্টেন্ট শেয়ার করুন নিজের টাইম লাইনে। অনেকেই আগ্রহী হয়ে উঠবে এইসব লেখার প্রতি এবং আপনার জনপ্রিয়তাও বাড়বে।

বিরক্তিকর নয় ব্যতিক্রমী পোস্ট করুনঃ

নিয়মিত পোস্ট করবেন ঠিকই, কিন্তু তাই বলে বিরক্তিকর পোস্ট করবেন না। অনেকেই আছেন, যারা যা করেন সব কিছুই ফেসবুকে পোস্ট করতে শুরু করেন। মনে রাখবেন আপনার যেটা ভাল লাগছে সবার সেটা ভাল নাও লাগতে পারে। পোস্ট যদি করতেই হয় ব্যতিক্রমী পোস্ট করুন। সাধারণ ঘটনা থেকে মজার বা তাত্‍পর্যপূর্ণ কিছু জিনিস বের করে ব্যতিক্রমী পোস্ট করুন। মনে রাখবেন ব্যতিক্রম বেশিরভাগ সময় জনপ্রিয় হয়।

নিউজ সাইটের পোস্ট শেয়ার করুনঃ

মানুষ খবরে থাকতে ভালবাসে। ধরুন আপনি খবর পেলেন একটু আগে ভূমিকম্প হয়েছে। কোনও নিউজ সাইটের পোস্ট নিজের টাইমলাইনে শেয়ার করলেন, দেখবেন বন্ধুরা আপনাকে আলাদা গুরুত্ব দেবে। সাম্প্রতিক কোনও ঘটনা নিয়ে নিজের বক্তব্য লিখুন। খেলা থেকে শুরু করে রাজনীতি, বিনোদন জগৎ ইত্যাদি পছন্দের যে কোন বিষয় নিজেই স্ট্যাটাস দিন। তাতে অন্যরা খুব সহজেই আপনার সঙ্গে এনগেজ হতে পারবে। ফলে জনপ্রিয়তাও বাড়বে আপনার।

সিনেমা, বই রিভিউ করুনঃ

মানুষ অজান্তেই তাদের ফলো করে যারা তাদের পছন্দের বিষয়ে নিয়ে চর্চা করে। সিনেমা বা বই হল এমন কিছু বিষয় যা নিয়ে আপনি চর্চা করলে বা রিভিউ দিলে মানুষ আকর্ষিত হয়। সপ্তাহের কোনও একটা নির্দিষ্ট দিনে ছোট করে সিনেমার রিভিউ দিন, অন্য একটা দিনে যে বইটা আপনি পড়লেন তা নিয়ে জানান। ধরুন রবিবার আপনি সম্প্রতি রিলিজ হওয়া সিনেমার রিভিউ লিখলেন, আর বুধবার সম্প্রতি পড়া কোনও বই নিয়ে লিখলেন।

প্রোফাইল পিকচারে অভিনবত্ব আনুনঃ

প্রোফাইল পিকচার হল অনেকটা প্রোডাক্টের প্যাকেট বা ইউটিউব ভিডিওতে থাম্বনেলের মত। ইউটিউবে অন্তত ৬০ শতাংশ ক্ষেত্রে আমরা ভিডিও দেখি thumbnail দেখে। তেমনই মানুষ একটা ফেসবুক প্রোফাইল ভাল-মন্দ বিচার করে প্রোফাইল পিকচার দেখে। প্রোফাইল পিকচার মানে শুধু সেলফি, বা নিজের ছবি দেওয়া নয় বেশিরভাগ জনপ্রিয় ফেসবুক পেজের প্রোফাইল পেজ হয় অভিনব। সেইরকমই কিছু ভাবুন। তবে খেয়াল রাখবেন প্রোফাইল পিকচার একরকম, আর আপনি পোস্ট করছেন অন্যকিছু সেরকম যেন না হয়। মাঝেমাঝেই ফেসবুকের প্রোফাইল পিকচার পরিবর্তন করুন।

বন্ধুদের সব পরিস্থিতিতে পাশে থাকার বার্তা দিনঃ

বন্ধুদের বিপদে পাশে থাকার বার্তা দিন। ধরুন কারও খুব তাড়াতাড়ি রক্তের প্রয়োজন। আপনি আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে সেই ব্যবস্থা করে দিন। কেউ হয়তো খুব অসুস্থ, চিকিত্‍সার জন্য টাকা প্রয়োজন। আপনার ফেসবুক প্রোফাইলের মাধ্যমে ব্যবস্থা করে দিন। মানুষ যদি জানে আপনি বিপদের সময় পাশে থাকবেন তাহলে এমনিতেই আপনি ফেসবুকে জনপ্রিয় হয়ে উঠবেন।

জন্মদিন, বিশেষ দিনে আলাদা কিছু করে বন্ধুদের স্পেশাল ফিল করতে দিনঃ

বন্ধুদের জন্মদিনে শুভেচ্ছা তো ব্যক্তিগত ভাবে জানাবেনই সঙ্গে বন্ধুকে স্পেশাল ফিল দেওয়ার জন্য আলাদা কিছু করুন। ধরা যাক আপনার বন্ধুর জন্মদিন ২৩ অক্টোবর। সেদিন আবার কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের জন্মদিন। আপনি পোস্ট করতেই পারেন ‘দেখো আমার বন্ধু পুরো পেলের মত বড় সেলিব্রেটি একই দিনে জন্মেছে।’

অশ্লীল বা অসাম্প্রদায়িক পেজে লাইক দেওয়া থেকে বিরত থাকুনঃ

মনে রাখবেন, আপনি ফেইসবুকে যা দেখছেন এবং লাইক কমেন্ট করেছেন। এগুলো কিন্তু আপনার ফ্রেন্ডরা দেখছে। তাই অশ্লীল বা অসাম্প্রদায়িক কোন কিছুতে লাইক কমেন্ট করবেন না।

নিজেকে হাসিখুশি মানুষ হিসাবে তুলে ধরুনঃ

একজন বিষণ্ণ আর খিটখিটে মানুষের বন্ধু কেউ হতে চায় না। তাই ফেসবুকে নিজেকে হাসিখুশি মানুষ হিসাবে উপস্থাপন করলেই পাবেন জনপ্রিয়তা। মজার স্ট্যাটাস দিন, সকলের মজার কথা বলুন। দেখবেন আপনাকে এমনিতেই পছন্দ করছে লোকে।

বিভিন্ন গ্রুপে যোগ দিনঃ

ফেইসবুকে আজকাল অনেক ভালো ভালো গ্রুপ আছে। এইসব গ্রুপে সক্রিয় সদস্য হয়ে যায়, সকলের সাথে পরিচিয় বাড়ান। সেখান থেকে বেছে বেছে পছন্দের মানুষের অ্যাড করুন। দেখবেন ভারি হচ্ছে আপনার ফ্রেন্ড লিস্ট।

নিজের প্রতিভার প্রচার করুনঃ

আপনি কি কোন কাজ খুব ভালো পারেন? যেমন রান্না করা, গান, নাচ, ছবি আঁকা, লেখালিখি ইত্যাদি কোন কিছু? তাহলে নিজের সেই প্রতিভা ফেইসবুকে প্রকাশ করুন বিভিন্ন ভিডিও বা ছবির মাধ্যমে। নিজের অর্জন থাকলে সেগুলোও তুলে ধরুন। দেখবেন অন্যরা আগ্রহী হয়ে উঠছে আপনার প্রতি।

টাইমিংঃ

সঠিক পোস্ট সঠিক সময়ে দেওয়াই ফেইসবুকে জনপ্রিয় হবার একটা মূল কৌশল। যেমন ছুটির দিনে বা বৃহস্পতিবারের রাতগুলোতে ফেসবুকে বেশী সক্রিয় থাকুন। মজার মজার পোস্ট ও স্ট্যাটাস দিন। দেখবেন জনপ্রিয়তা বাড়ছে।

সবশেষে যা বলব, তা হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়- আপনাকে সব সময়, আপনার বন্ধুদের গুরুত্ব দিতে হবে। তাদের পোস্ট, ছবি, কমেন্ট ইত্যাদিতে লাইক, কমেন্ট করবেন। তাদের পাশে থাকবেন।

নিচের পোস্টগুলো দেখতে পারেনঃ

ফেইসবুক পেইজে লাইকের জন্য সকল বন্ধুদের একসাথে ইনভাইট করুন

কিভাবে বুঝতে পারবেন, ফেইসবুকে কে আপনাকে ব্লক করেছে

ফেইসবুকে ভূয়া আইডি কিভাবে সনাক্ত করবেন

৩০০ কোটির বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারী আর নেই

ফেইসবুক ফটো কমেন্ট

No comments

0

ফেইসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায়!

ফেইসবুকে জনপ্রিয় হতে চান, ফেইসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায়!, want to be famous in fb, how to famous in facebook

ফেইসবুকে প্রোফাইল নেই! তাও এই যুগে! এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন। ফেইসবুকের দুনিয়ায় সারা বিশ্বের অনেক মানুষ রয়েছে, কিন্তু এত বড় একটা ফেইসবুকের দুনিয়ায় নিজেকে কী করে জনপ্রিয় করে তুলবেন?

তাহলে জেনে নিন, ফেইসবুকে ফেমাস হতে হলে কি কি করতে হবে?
আগ বাড়িয়ে বন্ধুত্বের হাত বাড়াবেন নাঃ

অনেকেই আছে যারা শুধু আকর্ষণীয় প্রোফাইল পিকচার বা সুন্দর মুখ দেখে ‘ফ্রেন্ড রিক্যুয়েস্ট’ পাঠায়। এই কাজটি আপনি মোটেও করবেন না। নিজেকে এমন ভাবে তৈরী করুন, যাতে অন্যরা আপনাকে Request পাঠায়।

‘লাইক’ কথাটার গুরত্ব বুঝে লাইক দিনঃ

এমনিতে ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার খুব সাধারণ একটা উপায় হল বিভিন্ন পোস্টে লাইক দিয়ে যাওয়া। লাইক এর চেয়ে কমেন্ট অনেকক্ষেত্রেই বেশি কার্যকরী হয়। ধরুন আপনার বন্ধু একটা ছবি পোস্ট করল। আপনি সেখানে শুধু লাইক দিলেন। বন্ধু খুশি হল ঠিকই, কিন্তু যদি সেখানে কমেন্ট করে মজার কিছু বললেন। দেখবেন সেটা আরও কাজে দেবে। সব পোস্টে লাইক দেওয়ার অভ্যাসটাও ছাড়ুন। নিজে কিছু লিখতে পারেন না? কোন সমস্যা নেই। বিভিন্ন ওয়েবসাইটের ভালো ভালো কন্টেন্ট শেয়ার করুন নিজের টাইম লাইনে। অনেকেই আগ্রহী হয়ে উঠবে এইসব লেখার প্রতি এবং আপনার জনপ্রিয়তাও বাড়বে।

বিরক্তিকর নয় ব্যতিক্রমী পোস্ট করুনঃ

নিয়মিত পোস্ট করবেন ঠিকই, কিন্তু তাই বলে বিরক্তিকর পোস্ট করবেন না। অনেকেই আছেন, যারা যা করেন সব কিছুই ফেসবুকে পোস্ট করতে শুরু করেন। মনে রাখবেন আপনার যেটা ভাল লাগছে সবার সেটা ভাল নাও লাগতে পারে। পোস্ট যদি করতেই হয় ব্যতিক্রমী পোস্ট করুন। সাধারণ ঘটনা থেকে মজার বা তাত্‍পর্যপূর্ণ কিছু জিনিস বের করে ব্যতিক্রমী পোস্ট করুন। মনে রাখবেন ব্যতিক্রম বেশিরভাগ সময় জনপ্রিয় হয়।

নিউজ সাইটের পোস্ট শেয়ার করুনঃ

মানুষ খবরে থাকতে ভালবাসে। ধরুন আপনি খবর পেলেন একটু আগে ভূমিকম্প হয়েছে। কোনও নিউজ সাইটের পোস্ট নিজের টাইমলাইনে শেয়ার করলেন, দেখবেন বন্ধুরা আপনাকে আলাদা গুরুত্ব দেবে। সাম্প্রতিক কোনও ঘটনা নিয়ে নিজের বক্তব্য লিখুন। খেলা থেকে শুরু করে রাজনীতি, বিনোদন জগৎ ইত্যাদি পছন্দের যে কোন বিষয় নিজেই স্ট্যাটাস দিন। তাতে অন্যরা খুব সহজেই আপনার সঙ্গে এনগেজ হতে পারবে। ফলে জনপ্রিয়তাও বাড়বে আপনার।

সিনেমা, বই রিভিউ করুনঃ

মানুষ অজান্তেই তাদের ফলো করে যারা তাদের পছন্দের বিষয়ে নিয়ে চর্চা করে। সিনেমা বা বই হল এমন কিছু বিষয় যা নিয়ে আপনি চর্চা করলে বা রিভিউ দিলে মানুষ আকর্ষিত হয়। সপ্তাহের কোনও একটা নির্দিষ্ট দিনে ছোট করে সিনেমার রিভিউ দিন, অন্য একটা দিনে যে বইটা আপনি পড়লেন তা নিয়ে জানান। ধরুন রবিবার আপনি সম্প্রতি রিলিজ হওয়া সিনেমার রিভিউ লিখলেন, আর বুধবার সম্প্রতি পড়া কোনও বই নিয়ে লিখলেন।

প্রোফাইল পিকচারে অভিনবত্ব আনুনঃ

প্রোফাইল পিকচার হল অনেকটা প্রোডাক্টের প্যাকেট বা ইউটিউব ভিডিওতে থাম্বনেলের মত। ইউটিউবে অন্তত ৬০ শতাংশ ক্ষেত্রে আমরা ভিডিও দেখি thumbnail দেখে। তেমনই মানুষ একটা ফেসবুক প্রোফাইল ভাল-মন্দ বিচার করে প্রোফাইল পিকচার দেখে। প্রোফাইল পিকচার মানে শুধু সেলফি, বা নিজের ছবি দেওয়া নয় বেশিরভাগ জনপ্রিয় ফেসবুক পেজের প্রোফাইল পেজ হয় অভিনব। সেইরকমই কিছু ভাবুন। তবে খেয়াল রাখবেন প্রোফাইল পিকচার একরকম, আর আপনি পোস্ট করছেন অন্যকিছু সেরকম যেন না হয়। মাঝেমাঝেই ফেসবুকের প্রোফাইল পিকচার পরিবর্তন করুন।

বন্ধুদের সব পরিস্থিতিতে পাশে থাকার বার্তা দিনঃ

বন্ধুদের বিপদে পাশে থাকার বার্তা দিন। ধরুন কারও খুব তাড়াতাড়ি রক্তের প্রয়োজন। আপনি আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে সেই ব্যবস্থা করে দিন। কেউ হয়তো খুব অসুস্থ, চিকিত্‍সার জন্য টাকা প্রয়োজন। আপনার ফেসবুক প্রোফাইলের মাধ্যমে ব্যবস্থা করে দিন। মানুষ যদি জানে আপনি বিপদের সময় পাশে থাকবেন তাহলে এমনিতেই আপনি ফেসবুকে জনপ্রিয় হয়ে উঠবেন।

জন্মদিন, বিশেষ দিনে আলাদা কিছু করে বন্ধুদের স্পেশাল ফিল করতে দিনঃ

বন্ধুদের জন্মদিনে শুভেচ্ছা তো ব্যক্তিগত ভাবে জানাবেনই সঙ্গে বন্ধুকে স্পেশাল ফিল দেওয়ার জন্য আলাদা কিছু করুন। ধরা যাক আপনার বন্ধুর জন্মদিন ২৩ অক্টোবর। সেদিন আবার কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের জন্মদিন। আপনি পোস্ট করতেই পারেন ‘দেখো আমার বন্ধু পুরো পেলের মত বড় সেলিব্রেটি একই দিনে জন্মেছে।’

অশ্লীল বা অসাম্প্রদায়িক পেজে লাইক দেওয়া থেকে বিরত থাকুনঃ

মনে রাখবেন, আপনি ফেইসবুকে যা দেখছেন এবং লাইক কমেন্ট করেছেন। এগুলো কিন্তু আপনার ফ্রেন্ডরা দেখছে। তাই অশ্লীল বা অসাম্প্রদায়িক কোন কিছুতে লাইক কমেন্ট করবেন না।

নিজেকে হাসিখুশি মানুষ হিসাবে তুলে ধরুনঃ

একজন বিষণ্ণ আর খিটখিটে মানুষের বন্ধু কেউ হতে চায় না। তাই ফেসবুকে নিজেকে হাসিখুশি মানুষ হিসাবে উপস্থাপন করলেই পাবেন জনপ্রিয়তা। মজার স্ট্যাটাস দিন, সকলের মজার কথা বলুন। দেখবেন আপনাকে এমনিতেই পছন্দ করছে লোকে।

বিভিন্ন গ্রুপে যোগ দিনঃ

ফেইসবুকে আজকাল অনেক ভালো ভালো গ্রুপ আছে। এইসব গ্রুপে সক্রিয় সদস্য হয়ে যায়, সকলের সাথে পরিচিয় বাড়ান। সেখান থেকে বেছে বেছে পছন্দের মানুষের অ্যাড করুন। দেখবেন ভারি হচ্ছে আপনার ফ্রেন্ড লিস্ট।

নিজের প্রতিভার প্রচার করুনঃ

আপনি কি কোন কাজ খুব ভালো পারেন? যেমন রান্না করা, গান, নাচ, ছবি আঁকা, লেখালিখি ইত্যাদি কোন কিছু? তাহলে নিজের সেই প্রতিভা ফেইসবুকে প্রকাশ করুন বিভিন্ন ভিডিও বা ছবির মাধ্যমে। নিজের অর্জন থাকলে সেগুলোও তুলে ধরুন। দেখবেন অন্যরা আগ্রহী হয়ে উঠছে আপনার প্রতি।

টাইমিংঃ

সঠিক পোস্ট সঠিক সময়ে দেওয়াই ফেইসবুকে জনপ্রিয় হবার একটা মূল কৌশল। যেমন ছুটির দিনে বা বৃহস্পতিবারের রাতগুলোতে ফেসবুকে বেশী সক্রিয় থাকুন। মজার মজার পোস্ট ও স্ট্যাটাস দিন। দেখবেন জনপ্রিয়তা বাড়ছে।

সবশেষে যা বলব, তা হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়- আপনাকে সব সময়, আপনার বন্ধুদের গুরুত্ব দিতে হবে। তাদের পোস্ট, ছবি, কমেন্ট ইত্যাদিতে লাইক, কমেন্ট করবেন। তাদের পাশে থাকবেন।

নিচের পোস্টগুলো দেখতে পারেনঃ

ফেইসবুক পেইজে লাইকের জন্য সকল বন্ধুদের একসাথে ইনভাইট করুন

কিভাবে বুঝতে পারবেন, ফেইসবুকে কে আপনাকে ব্লক করেছে

ফেইসবুকে ভূয়া আইডি কিভাবে সনাক্ত করবেন

৩০০ কোটির বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারী আর নেই

ফেইসবুক ফটো কমেন্ট
ফেইসবুকে জনপ্রিয় হতে চান?
Item Reviewed: ফেইসবুকে জনপ্রিয় হতে চান? 9 out of 10 based on 10 ratings. 9 user reviews.

Post a Comment

Dear readers, after reading the Content please ask for advice and to provide constructive feedback Please Write Relevant Comment with Polite Language.Your comments inspired me to continue blogging. Your opinion much more valuable to me. Thank you.

Powered by Blogger.